Sunday, June 16, 2024
মূলপাতাঅন্যান্যদুধের শিশুকে ছোট্ট মেয়ের কোলে দিয়ে মা গেলেন ভোট দিতে

দুধের শিশুকে ছোট্ট মেয়ের কোলে দিয়ে মা গেলেন ভোট দিতে

আশপাশের সকল নারী এসেছেন ভোটকেন্দ্রে । সংসারের সকল কর্ম ব্যস্ততা মাঝেও শেষ মুহূর্তে এসে এক মা তার দুই মেয়েকে সাথে নিয়ে কেন্দ্রে আসেন ভোট দিতে । ইভিএমে ভোট তাই লাইন দীর্ঘ । দুধের শিশুকে কোলে ও অপর পাশে চার বছরের মেয়েকে নিয়ে ছিলেন লাইনে দাঁড়িয়েও ।

কেন্দ্রে যাওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে চার বছরের মেয়ের কোলে দুধের শিশুকে রেখে মা জান ভোট দিতে । এমনই চিত্রের তার দেখা মিলেছে নেত্রকোনা সদর পৌরসভা নির্বাচনে । সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত চলা বিরতিহীন এই ভোটগ্রহণের মাঝেই শহরের জামিয়া মিফতাহুল উলুম আবাসিক মাদ্রাসা কেন্দ্রে দুধের শিশু রেখে মায়ের ভোট দেওয়ার চিত্র এখন ঘুরে বেড়াচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে ।

ছবিতে আরও দেখা গিয়েছে দাঁড়িয়ে থাকা দুই শিশুর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন ওই কেন্দ্রের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে থাকা দুর্গাপুর সার্কুলারে সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলি । জামিয়া মিফতাহুল উলুম আবাসিক মাদ্রাসা এই কেন্দ্রে একটি ইভিএম মেশিনের মাধ্যমে নারীদের ভোট গ্রহণ হাওয়ায় দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষায় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় । এছাড়াও প্রথমবারের মতো ইভিএমে ভোট হওয়ায় অনেকেই ভোট প্রদানের সময় নিয়েছেন অনেকেই ।

তবে মায়ের ভোট শেষ না হওয়া পর্যন্ত ওই শিশুটির পাশে দাঁড়িয়েছিলেন পুলিশের এই অফিসার । মাঝের ওই সময়টুকুতেই শিশু দুটির একাকীত্ব কাটিয়ে কথাবার্তা আর তাদের নিরাপত্তা দিয়ে গেছেন তিনি । কেন্দ্র থেকে ভোট প্রদান করে বের হয়ে আসার পর শিশু দুটিকে মায়ের হাতে তুলে দেন এই সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলি।

দুর্গাপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদা শারমিন নেলি  জানান, দুপুরে জামিয়া মিফতাহুল উলুম আবাসিক মাদ্রাসা কেন্দ্রে আইন-শৃংখলার দায়িত্বে থাকা কালীন হঠাৎ শিশু দুটিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখি । তাদের সামনে গিয়ে জানতে পারি তাদের মা ভোট দিতে গেছে । তখন তাদের সাথে কথাবার্তা বলি এবং তাদের মা আসার পর মায়ের হাতে শিশুদের তুলে দেই ।

তিনি আরো জানান  নির্বাচনে ভোটারের উপস্থিতি ছিল অনেক বেশি তেমনি আগ্রহ ছিলো অনেক । তাছাড়া বোনের প্রতি বোনের ভালোবাসা ও এই চিত্র মুগ্ধ হওয়ার মতো ।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments