Saturday, January 28, 2023
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদমদন উপজেলানেত্রকোনার মদনে স্বামীর সংসার ছেড়ে আসা গৃহবধুর যৌন নিপীড়নের অভিযোগে প্রেমিক আটক

নেত্রকোনার মদনে স্বামীর সংসার ছেড়ে আসা গৃহবধুর যৌন নিপীড়নের অভিযোগে প্রেমিক আটক

নেত্রকোনার মদনে স্বামীর সংসার ছেড়ে আসা এক গৃহবধুর যৌন নিপীড়নের অভিযোগে পুলিশের হাতে আটক হয়েছে আনোয়ার নামের (২১) ওই গৃহবধুর সাবেক প্রেমিক। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাউটাইল ইউনিয়নের জাওলা গ্রামে। আটক আনোয়ার ওই গ্রামের ছাবেদ আলীর ছেলে। মদন থানার পুলিশ তাকে মঙ্গলবার দুপুরে কোর্টে সোপর্দ করেছে। এর আগে সোমবার রাতে আটক আনোয়ারকে আসামী করে ওই গৃহবধূ (১৯) মদন থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, জাওলা গ্রামের ছাবেদ আলীর ছেলে আনোয়ার ও একই গ্রামের অভিযোগকারী তরুণী সম্পর্কে চাচাতো ভাই-বোন হয়। গত তিন বছর আগে তাদের দুই জনের মধ্যেই প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি দুই পরিবারের মধ্যে জানাজানি হলে ২০১৯ সালে ওই তরুণীকে পাশের উপজেলা কেন্দুয়ায় বিয়ে দিয়ে দেয় পরিবার। কিন্তু প্রেমিকের বিয়ের প্রেলোভনে ওই গৃহবধূ স্বামীর সংসার ছেড়ে বাবার বাড়িতে চলে আসে। এ নিয়ে এলাকায় কয়েক দফা সালিশ বৈঠক হলেও কোনো মীমাংসা হয়নি।

কিন্তু সোমবার সকালে আনোয়ার প্রেমিকার সাথে দেখা করতে মেয়েটির মামা হেলিম মিয়ার বাড়িতে যান। ওইখানে প্রেমিকাকে যৌন নিপীড়ন করলে আনোয়ার কে ঘরে আটকে রেখে মদন থানায় খবর দেওয়া হয়। পরে পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। এ ঘটনায় রাতেই গৃহবধূ মামলা দায়ের করলে মঙ্গলবার দুপুরে আটক আনেয়ারকে নেত্রকোনা আদালতে পাঠানো হয়।

এদিকে অভিযুক্ত আনোয়ার বলেন, ৩ বছর আগে তার (গৃহবধূর) সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক ছিল। অন্য জায়গায় বিয়ে হওয়ার পর আমি তাকে ভুলে গছি। স্বামীর সংসার ছেড়ে বাড়িতে চলে আসার পর থেকে আমাকে বিয়ে করার জন্য চাপ সৃষ্টি করছে। তার ডাকে সোমবার সকালে তার মামার বাড়িতে যাওয়ার পর আমাকে আটক করে থানায় দিয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান সাফায়াত উল্লাহ রয়েল জানান, বিষয়টি নিয়ে এলাকায় একাধিক সালিশ বৈঠক হয়েছে। কিন্তু কোনো মীমাংসা হয়নি। শুনেছি ছেলেটি কে আটক করে থানায় দেওয়া হয়েছে। মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments