Homeসংবাদকেন্দুয়া উপজেলাকেন্দুয়ার শারীরিক নির্যাতনের শিকার তরুণীর মা বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ

কেন্দুয়ার শারীরিক নির্যাতনের শিকার তরুণীর মা বিচার চেয়ে থানায় অভিযোগ

হুমায়ুন কবির, কেন্দুয়া:
নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের নেত্রকোনা-কেন্দুয়া সড়কের পাশে এক তরুণী এক বছর আগে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়। এর পর থেকে ওই তরুণী মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পরে। বর্তমানে পরিবারের লোকজন বাধ্য হয়ে গাছের সাথে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছেন।

এ ঘটনায় ওই ভিকটিমের মা বাদী হয়ে উপজেলার নওপাড়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য দুর্গাপুর গ্রামের হানিফ মেম্বার(৩২)ও ললিতা বেগম(৫০) এর নাম উল্লেখ কেন্দুয়া থানার একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।অভিযোগে উল্লেখ, প্রতিবেশি ২নং বিবাদী ললিতা আক্তারের বাড়িতে ভিকটিম প্রায় সময় আশা যাওয়া করতেন।

এই সুবাদে ২০১৯ সালের ১৩ মার্চ ললিতা আক্তার ভিকটিমকে জরুরী কাজ আছে বলে খবর পাঠিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর ১নং বিবাদী হানিফ মেম্বার ২নং বিবাদী ললিতা আক্তারের টিন সেট বসত ঘরের পশ্চিমের কক্ষে নিয়া ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

পরে ১নং বিবাদী হানিফ মেম্বার ধর্ষণ করার পর ভিকটিমকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখাইয়া বাড়ীতে পাঠিয়ে দেয়। উক্ত ঘটনা ভিকটিম তার মাকে অবগত করেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে।

ভিকটিমের মা অভিযোগে আরো উল্লেখ করেন, মামলার ১নং বিবাদী হানিফ মেম্বার ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করার পর বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখানোর ফলে বিবাদীদের ভয়ে উক্ত ঘটনার কোন মামলা মোকদ্দমা তিনি করতে পারেন নি।

এর পর থেকে ভিকটিম মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে বলে অভিযোগে প্রকাশ। বর্তমানে ভিকটিমকে পরিবারের লোকজন বাধ্য হয়ে গাছের সাথে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখেছেন।

এ ঘটনায় কেন্দুয়া উপজেলা শাখার মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশন(বাসক) এর নজরে আসার পর সংগঠনটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহযোগিতায় শুক্রবার (২৪ সেপ্টেবর) কেন্দুয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভিকটিমের মা ।

এ বিষয়ে কেন্দুয়া উপজেলা শাখার মানবাধিকার সংগঠন আইন সহায়তা কেন্দ্র ফাউন্ডেশন(বাসক) এর সভাপতি শাহ আলী তৌফিক রিপন জানান, এই ঘটনাটি এখন আইনি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ তদন্ত করে প্রকৃত ঘটনার রহস্য বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন।

এছাড়াও আমরা মানবাধিকার সংগঠন চেষ্টা করছি ভিকটিম কে অতিদ্রুত সুস্থ স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনার জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা করার। এ লক্ষে আমরা একটা ফান্ড তৈয়ার করার চেষ্টা করছি। যদি কোন মানবিক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান ইচ্ছে করেন। তাহলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করে ভিকটিমকে সহযোগিতা করতে পারেন ।

এ ব্যাপারে অভিযোগে উল্লেখ করা ১নং বিবাদী নওপাড়া ইউনিয়নে মাইজকান্দি গ্রামের বর্তমান ইউপি সদস্য হানিফ মেম্বারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, সামনে ইউপি নির্বাচন তাই আমার প্রতিপক্ষরা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। প্রতিপক্ষরা চায় আমার চরিত্র নিয়ে এমন ধরনের কথা প্রচার করে সাধারণ ভোটারদের আমার কাছ থেকে দুরে রাখতে। তিনি এ ঘটনার সাথে জড়িত নয়-বলে তিনি দাবী করেন।

এ বিষয়ে কেন্দুয়া থানার ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ জানান, শুক্রবার কেন্দুয়া থানার ভিকটিমের মা বাদী হয়ে দুই জনের নাম উল্লেখ করে, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং ধর্ষণের সহযোগিতার অভিযোগ দায়ের করেন। আমরা অভিযোগটি আমলে নিয়ে তদন্ত করে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

সাম্প্রতিক সংবাদ