Saturday, May 18, 2024
মূলপাতাঅন্যান্যনেত্রকোনার সীমান্ত উপজেলা দুর্গাপুরে পশুর সাথেও শত্রুতা!

নেত্রকোনার সীমান্ত উপজেলা দুর্গাপুরে পশুর সাথেও শত্রুতা!

নেত্রকোনার সীমান্ত উপজেলা দুর্গাপুরে মানুষ শুরু করেছে পশুর সাথেও শত্রুতা। গভীর রাতে এক ব্যাক্তির গোয়াল ঘর থেকে বাছুর চুরি করে নিয়ে হত্যার পর অন্যের ধানক্ষেতে ফেলে রাখে দুর্বৃত্তরা। এমন একটি ঘটনা ঘটেছে উপজেলার চক লেঙ্গুরা গ্রামের হকার জগদীশ রবিদাসের সাথে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার বুরুঙ্গা গ্রামের কৃষক লোকমান মিয়ার জমিতে মৃত পড়ে থাকা বাছুরটিকে উদ্ধার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জগদীশ রবিদাস হকারি পেশার পাশাপাশি গরু পালন করেন। সোমবার দিবাগত গভীর রাতে গোয়াল ঘর থেকে চুরি হয়ে যায় তার সাত মাস বয়সের একটি বাছুর। পরে সকালে ঘুম থেকে উঠে বাছুর দেখতে না পেয়ে বিভিন্ন জায়গায় খুঁজাখুঁজি শুরু করেন তিনি। সকাল পেরিয়ে দুপুর গড়ালেও যেন খোঁজ মিলেনা বাছুরের । চিন্তায় আচ্ছন্ন দরিদ্র মালিকের কাছে হঠাৎ খবর আসে পাশের গ্রামের ধান খেতে পড়ে আছে একটি বাছুর।

অমনি বাছুরটিকে উদ্ধারের জন্য দ্রুত ছুটে গেলেও নিয়তি যেন তার বিপরীতেই। বাছুর ফিরে পেলেও তার মাঝে নেই প্রাণ। মূলত মানুষের নিষ্ঠুরতার শিকার হয়েছে বোবা প্রাণীটি। গলায় রশি বেঁধে হত্যার পর বাছুরটিকে ফেলে রাখা হয়েছে ধানক্ষেত। এমন নিষ্ঠুর এই হত্যাযজ্ঞের শিকার প্রাণিটির মালিক উপজেলার পৌর শহরের চক লেঙ্গুরা গ্রামের বাসিন্দা জগদীশ রবি দাস পেশায় একজন হকার। তিনি তার হকারি ব্যবসার পাশাপাশি বাড়িতে পালন করেন কয়েকটি গরু। যা দিয়ে তার সংসারের খরচ চলে। কিন্তু সোমবার মধ্যরাতে গোয়াল ঘরের তালা ভেঙে এই গরুগুলোর মাঝখান থেকে বাছুরটিকে নিয়ে যায় কে বা কারা।

পরের দিন মঙ্গলবার দুপুরে বুরুঙ্গা গ্রামে কৃষক লোকমান মিয়া তার জমিতে একটি গরু পড়ে থাকতে দেখেন। এরপর খবর দিলে বাছুরটির মালিক জগদীশ তার হারিয়ে যাওয়া বাছুর বলে শনাক্ত করেন।জগদীশ রবি দাস জানান, রাতেই বাছুরটিকে পাশের গ্রামের ধানক্ষেতের পাশে নিয়ে গলায় থাকা রশি দিয়েই ফাঁস লাগিয়ে হত্যা করা হয়েছে।তবে শত্রুতাবশত এই হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হলেও তিনি জানান কারো সাথে তার কোন রকমের শত্রুতা নেই। এদিকে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন সেভ দ্য এনিমেলস অফ সুসং সংগঠনের সদস্যরা। তারা জানান, নিরীহ প্রাণীদের এভাবে নির্মমভাবে হত্যার কোনো মানে হয় না।

তাই অচিরেই জঘন্য এই অপরাধের সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।এব্যাপারে দুর্গাপুর থানা ওসি শাহ নুর এ আলম জানান, ঘটনাটি শুনেছি। এ ব্যাপারে এখনো পর্যন্ত কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলেও আশ্বাস প্রদান করেন।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments