Sunday, November 27, 2022
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদমদন উপজেলানেত্রকোনায় তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হয়েও স্বাভাবিক জীবনে ফিরছেন হিজড়ারা

নেত্রকোনায় তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হয়েও স্বাভাবিক জীবনে ফিরছেন হিজড়ারা

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ হয়েও সাধারণ জীবন যাপন করছেন নেত্রকোনার মদন উপজেলার ‘স্বপ্ন ছোঁয়া, নামের একটি হিজড়া সংগঠনের সদস্যরা। চাঁদাবাজি ও ভিক্ষাবৃত্তি ছেড়ে কর্ম করে জীবিকা নির্বাহ করছেন এই সংগঠনের ২৬ জন হিজড়া।এ

ছাড়াও করোনা ভাইরাস সচেতনতা ও প্রাকৃতিক দূর্যোগে স্বেচ্চাসেবী ভূমিকায় কাজ করছে সংগঠনটি। এতে সার্বিক সহযোগীতা করছেন জেলা প্রশাসনসহ স্থাণীয়রা। স্বাভাবিক জীবনে ফিরলেও স্থায়ী বাসস্থান না থাকায় বাধ্য হয়ে এখনো ছন্নছাড়া জীবন যাপন করছেন অনেক হিজড়া। তাই তাদের জন্য বসবাস যোগ্য পল্লী স্থাপনের দাবি জানিয়ে আসছেন তারা। নেত্রকোনার হাওরবেষ্টিত মদন পৌর শহরের লন্ডনী মার্কেট এলাকায় চায়ের দোকানে চা বিক্রি করছেন এক দোকানদার।

দেখতে শুনতে পুরুষের মতো হলেও তিনি একজন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। সমাজের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে হিজড়া শিউলি নাম পরিবর্তন করে হয়েছেন (সুজন)। প্রতিদিন সুজনের দোকানে চা খেতে আসেন স্থানীয়রা। যা আয় হয় তা দিয়েই কোন রকমে চলে তার জীবন। তার মতই অন্য একজন নাম স্মৃতি হিজড়া।

নাম পাল্টে খাবার হোটেল চালিয়ে স্বাভাবিক জীবন চালাচ্ছেন জসিমসহ বেশকজন হিজরা। শুধু হোটেল নয় জসিমের রয়েছে হাঁসের খামারও। এছাড়াও ইলেক্ট্রনিক কাজ শিখে জীবিকা নির্বাহ করছেন অন্যএকজন তাপসী।

তাদের ভিক্ষাবৃত্তি ও চাঁদাবাজি ছেড়ে স্বাভাবিক জীবন যাপনে উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি কর্মের ব্যাবস্থা করছে ২০১৭ সালে প্রতিষ্টিত মদন পৌর শহরের স্বেচ্চাসেবী সংগঠন স্বপ্ন ছোঁয়া। সংগঠনটির সদস্য সংখ্যা ৫ শতাধিক হলেও এতে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রয়েছেন ১২০জন।

তারা শুধুমাত্র হিজড়াদের উন্নয়নই নয় প্রতিবন্ধি নারী-শিশুদের সহায়তার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস সচেতনতায় ও প্রাকৃতিক দূর্যোগে স্বেচ্চাসেবীর ভূমিকায় কাজ করছে সংগঠনটির সদস্যরা।

এরইমধ্যে মদন পৌরসভায় ৩,৪,৫ নং ওয়ার্ড থেকে সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে নির্বাচনেও অংশ নিয়েছেন সংগঠনটির সাধারন সম্পাদক সেজুতি তালুকদার সোনালী (হিজড়া)।

তাদের এমন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসাটা মানতে পারছে না জেলা শহরসহ বিভিন্ন স্থানে থাকা অন্যান্য হিজড়ারা। প্রতিনিয়ত তাদের হুমকি ধমকিতে অনেকটাই বাধাগ্রস্ত হচ্ছে তাদের কার্যক্রম, অভিযোগ করছেন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা হিজড়ারা।

এদিকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরলেও স্থায়ী বাসস্থান না থাকায় বাধ্য হয়ে এখনো ছন্নছাড়া জীবন যাপন করছেন অনেক হিজড়া। তাই তাদের বসবাস যোগ্য পল্লী নির্মানের দাবি জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি (জয়ীতা) অনন্যা তালুকদার।

এদিকে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য আলাদা পল্লী নির্মানসহ স্বাভাবিক জীবন যাপনে সার্বিক সহযোগীতার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা প্রশাসক কাজি মো: আবদুর রহমান ও পুলিশ সুপার আকবর আলী মুনসী।

শুধুমাত্র আশ্বাস নয়, জেলার বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে প্রতিবন্ধকতা দূর করতে কার্যকর উদ্যোগ নিবে প্রশাসন। এমনটাই প্রত্যাশা হিজরা জনগোষ্টিসহ সর্বস্তরের মানুষের।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments