Saturday, December 3, 2022
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদকেন্দুয়া উপজেলানেত্রকোনায় মসজিদ কমিটির উপর হামলায় আহত চার

নেত্রকোনায় মসজিদ কমিটির উপর হামলায় আহত চার

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় মসজিদ কমিটির দ্বন্দ্বের জেরে জোহরের নামাজের সময় কমিটির সভাপতি সহ মুসুল্লিল্লের উপর হামলায় চারজন আহত। এ ঘটনায় কেন্দুয়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে।

এদিকে আহতদের উদ্ধার করে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে কর্তব্যরত জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডাক্তার বিপাশা মজুমদার তাদেরকে চিকিৎসা দেন। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার দুপুরে কেন্দুয়া উপজেলার আশুজিয়া ইউনিয়নের রামপুর চান্দপাড়া মসজিদে।

নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আহতরা হলেন, রামপুর চান্দপাড়া মসজিদ কমিটির সভাপতি ও ভগবতী প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাহবুবুল আলম। অন্যরা হলেন খালেকুজ্জামান, জুয়েল রানা, নজরুল ইসলাম।

আহতরা জানান, গতকাল সোমবার রাতে মসজিদের ইমাম সাইফুল ইসলামকে ভয়ভীতি দেখিয়ে পাঠিয়ে দেয় এই গ্রামেরই আলমগীর কবির বুলবুল গংরা। পরে ঈদের জামাত পড়া নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। তারা মাঠে নামাজ পড়বে বললে আমরা মসজিদে নামাজ আদায় করি। পরে জোহরের নামাজের আযান দিতে গিয়ে ইয়াসিন দেখে মসজিদের তালা ভেঙ্গে নতুন তালা লাগিয়েছে। আমাদেরকে খবর দিলে আমরা গিয়ে মসজিদের বারান্দায় নামাজ আদায় করতে থাকি।

এসময় ওরা ২০ থেকে ২৫ জনের একটি দল আমাদের উপর হামলা চালায়। এতে চারজনই আহত হই। এই হামলার কারণ জানতে চাইলে তারা আরো জানায়, গত ২০১৭ সনে জনৈক কামরুল ইসলামদের পৈত্রিক সম্পত্তি দেয়া হয় মসজিদ করতে। পরে অবকাঠামো তৈরি করতে গিয়ে দরজার কাজটি সম্পন্ন হয়নি। এই দরজা লাগাতে একই এলাকার আলমগীর কবির বুলবুল গংরা এক হিন্দু ব্যাক্তির কাছ থেকে টাকা নিয়ে দরজা লাগায়।

পরবর্তীতে তারা কমিটি দিলে গত চারবছর ওই কমিটি দারা মসজিদ পরিচালিত হয়েছে। এরপর গত দুইমাস পূর্বে আবারো কমিটি করতে তারাই মিটিং ডাকে। কিন্তু সেই মিটিংয়ে দুইতিন জন উপস্থিত না হয়ে কমিটি করলে আবার সেই কমিটির বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে নানা বিবাদ লাগায়। এই বিষয়টি নিয়ে একাধিক বার আলোচনা হলেও তাদের উগ্রমিতে এলাকার মানুষ এখন অতিষ্ঠ।

এ ব্যাপারে কেন্দুয়া থানার ওসি কাজি শাহনেওয়াজ জানান, মসজিদের কমিটি নিয়ে তালা দেয়। পরে এই তালা নিয়ে আজ তাদের মাঝে মারামারি হয়েছে। এতে উভয় পক্ষই আহত হয়। আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিবাদ মীমাংসা করে দিয়ে আসছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। এ ব্যাপারে কেউ অভিযোগ দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments