Sunday, March 3, 2024
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদনেত্রকোনা সদর উপজেলাপ্রতারণা মামলার রায় ৮০ লাখ টাকা অর্থদন্ড, দুই বছর ১০ মাস...

প্রতারণা মামলার রায় ৮০ লাখ টাকা অর্থদন্ড, দুই বছর ১০ মাস কারাদন্ড

নেত্রকোনায় চেক প্রতারণা মামলায় মো. দেলোয়ার হোসেন খানের বিরুদ্ধে তিনটি পৃথক মামলায় ৮০ লাখ টাকা অর্থদন্ড ও ২ বছর ১০ মাস কারাদন্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। বুধবার বিকেলে নেত্রকোনা যুগ্ন ও দায়রা জজ আদালত ১ম এবং যুগ্ন ও দায়রা জজ আদালত ২য় নেত্রকোনা এ রায় দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, শহরের উত্তর সাতপাই এলাকার মতিয়র রহমান খানের ছেলে দেলোয়ার হোসেন খানের সাথে গত ২০০০ সালে একই এলাকার মৃত কসম উদ্দিন খানের ছেলে গোলাম মহিউদ্দিন মনু ঠিকাদরী ব্যবসা শুরু করেন। ব্যবসার আয় এবং গোলাম মহিউদ্দিন খানের ক্রয় করা কিছু জমি দেলোয়ার হোসেন খানকে রেজিস্ট্রী করে দেন। ব্যবসা চলার এক পর্যায়ে দুইজনের মধ্যে মনোমালিন্য দেখা দেয়। পরে ভাগ বাটোয়ারা নিয়ে এলাকায় কয়েক দফা সালিশ হয়। এরপরে তারা পৃথকভাবে ব্যবসা শুরু করেন। এরই প্রেক্ষিতে দেলোয়ার হোসেন খান ৮০ লাখ টাকার তিনটি চেক গোলাম মহিউদ্দিনকে দেন।

২০১৮ সালের ২ এপ্রিল উভয় পক্ষের মধ্যে চুক্তিপত্র নোটারী করা হয়। গত ২০১৮ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ৫০ লাখ, পরের বছর ২০১৯ সালের ১৮ মার্চ ২০ লাখ ও একই বছরের ১৬ মে আরও ১০ লাখ টাকার চেক এসআইবিএল ব্যাংক লিমিটেড সাতপাই শাখার অনূকুলে দেন। চেকগুলো ব্যাংকে জমা দিলে ডিজওনার হয়।

চেক ডিজওনার হওয়ার পর ২০১৯ সালে দেলোয়ার হোসেন খানের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন গোলাম মহিউদ্দিন। গত ২০১৮ সালে ৫০ লাখ টাকার এবং বাকী ৩০ লাখ টাকার দুটি চেক প্রতারণার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়।

মামলায় আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমানীত হওয়ায় বুধবার বিকেলে বিজ্ঞ বিচারক মোহাম্মদ সাইফুল ইলাহী ও বিজ্ঞ বিচারক মোহাম্মদ শহীদুল ইসলাম এ রায় দেন।

রাস্ট্রপক্ষে আইনজীবি ছিলেন যুগ্ন জেলা ও দায়রা জজ আদালত ১ম অ্যাডভোকেট এম এ মজিদ ও যুগ্ন জেলা ও দায়রা জজ আদালত ২য় অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম। বাদী পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শিবলী সাদি অপু ও আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট আফতাব উদ্দিন খান।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments