Sunday, March 3, 2024
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদনেত্রকোনা সদর উপজেলানেত্রকোনায় মডেল মসজিদ স্থাপনের জায়গা নিরুপণে অনিয়মের অভিযোগ

নেত্রকোনায় মডেল মসজিদ স্থাপনের জায়গা নিরুপণে অনিয়মের অভিযোগ

দেশব্যাপী অত্যাধুনিক ডিজাইনের মডেল মসজিদ স্থাপনের কার্যক্রম সুন্দরভাবে চললেও নেত্রকোনা জেলার প্রধান মসজিদটি স্থাপনের স্থান নিরুপন নিয়ে উঠেছে নানা অভিযোগ। একাধিকবার দেয়া সাধারণ নাগরিকসহ আলেম ওলামাগণের আবেদনের তোয়াক্কা করছেনা বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান ইসলামি ফাউনন্ডশন।

এ পর্যন্ত তিন তিনবার স্মারকলিপিসহ লিখিত আবেদন করে আসলেও রহস্যজনক কারণে জেলার মূল ফটকে সরকারী জায়গা থাকা স্বত্বেও প্রত্যন্ত গ্রামে স্থাপনে অনড় বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান ইসলামি ফাউন্ডেশন। সর্বশেষ ১৯ জানুয়ারী শতাধিক আলেম ওলামাগণসহ সাধারণ স্বাক্ষরিত আরও একটি আবেদনপত্র পাঠানো হয়েছে প্রকল্প পরিচালকসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধŸতন বরাবরে।

এসকল আবেদন দিয়েও কোন কাজ হচ্ছে না কেন এ ব্যাপারে জেলার ইসলামি ফাউন্ডেশনের উপ পরিচালক শফিকুর রহমান শফিক কথা বলতে নারাজ। তিনি এ বিষয়ে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। সর্বশেষ আবেদনে জানা গেছে, জেলা শহরের প্রবেশ মুখ মোক্তারপাড়া মগড়া নদীর ব্রীজ সংলগ্ন্ ১ নং খতিয়ান ভুক্ত গেজেটে জয়ের বাজারের বর্তমান মসজিদস্থলে সরকারী জায়গা রয়েছে ১ একর ২১ শতক। অর্থাৎ ১২১ শতাংশ ভূমি। কিন্তু মসজিদের জন্য প্রয়োজন মাত্র ৪৫ শতাংশ। অথচ এই জায়গা রেখে জেলার দৃশ্যমান সৌন্দর্য্যকে অদৃশ্য করার পায়তারা করা হচ্ছে ব্যাক্তি স্বার্থে।

জেলার ডিসি অফিস, এসপি অফিস, পশু হাসপাতাল, সার্কিট হাউস, জেলা সদর হাসপাতাল, মহিলা কলেজ, বাস টার্মিনাল, সড়ক ভবন, এলজিইডি ভবন, আনসার অফিস, নির্বাচন অফিস, জেলা জজ আদালতসহ আরও সকল দপ্তরের সংসোগস্থলে জায়গা থাকা স্বত্বেও চার কিলোমিটার দূরে জনমানব শূন্য এলাকায় মসজিদটি নেয়ার কারণ বুঝতে পারছেন না তারা।

মানুষ শহরে চলে আসে কাজের তাগিদে সেখানে গ্রামে যাবে এই নান্দনিক মসজিদে নামাজ পড়তে। এটা কেমন উল্টো ভাবনা এটাই কারোর মাথায় আসছে না। যেখানে আদালত পাড়া রয়েছে সেখানে মানুষের আনাগুনার ফাঁকে নামাজ আদায় সহ নারীরা সুযোগ পাবে বড় জোর তিন থেকে পাঁচ মিনিট হেঁটে। সেখানে গাড়ি ভাড়া দিয়ে উল্টো যানবাহন নিয়ে গিয়ে নামাজ পড়ে আবার আসবে এই বিষয়টিই জেলাবাসীর মাথায় আসছে না বলে উল্লেখ করেন আবেদনে। এই ঘটনার তদন্ত করে পরেই মসজিদ নির্মাণের ব্যবস্থা নেয়ার দাবী সকলের।

তারা বলেন, গত ২৬ জানুয়ারী প্রচারবহুল দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকায় প্রাকশিত “অপার বিষ্ময়ের মডেল মসজিদ” শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। আর এমন সংবাদে মসজিদের লক্ষ্য উদ্দেশ্য সম্পর্কেও ইতিমধ্যে অবগত হয়েছেন জেলার আপামর মানুষ। কিন্তু নেত্রকনোর বেলায় ঘটছে ভিন্ন রূপ। এটি দেখার কেউ নেই কেন ?

তারা আরও জানান, নেত্রকোনা সদর উপজেলার মসজিদটিও প্রান্তের এক কোণে সরু রাস্তার ভেতর দিয়ে সওদাগড় পাড়া অর্থাৎ গাইনপাড়া এলাকায় গড়ে তোলা হয়েছে মসজিদটি। যেখানে গড়ে প্রতিদিন ওই গ্রামের ২০ জন মুসুল্লি হবে না কিনা সন্দেহ রয়েছে।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments