Thursday, February 22, 2024
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদনেত্রকোনা সদর উপজেলানেত্রকোনায় মানবতাবিরোধী অপরাধের খলিলুরের মৃত্যুদণ্ড

নেত্রকোনায় মানবতাবিরোধী অপরাধের খলিলুরের মৃত্যুদণ্ড

সোহান আহমেদ:
একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নেত্রকোনার খলিলুর রহমানকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। মঙ্গলবার সকালে ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডপ্রাপ্ত খলিলুর রহমান এখনও পলাতক রয়েছেন।

রায়ে নেত্রকোনা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদসহ দুর্গাপুর-কলমাকান্দা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধারা সন্তুষ্টী প্রকাশের পাশাপাশি পলাতক আসামিদের আইনের আওতায় এনে ফাঁসি কার্যকর করার দাবি জানান নেত্রকোনা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নূরুল আমিন।

ট্রাইব্যুনাল সূত্রে জানা গেছে, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগসহ পলাতক আসামি খলিলুর রহমানের বিরুদ্ধে আনা ৫টি অভিযোগই প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে ৪টি অভিযোগে মৃত্যদণ্ড এবং একটি অভিযোগে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে তাকে।

রায়ে বলা হয়েছে: নেত্রকোনায় গ্রাম দখল করে হত্যা ও লুটপাট চালায় এ মানবতাবিরোধী অপরাধী। ট্রাইব্যুনালে এই প্রথম মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজনৈতিক দলের ওপর গণহত্যার অভিযোগে এ রায় দেয়া হয়েছে। মামলাটিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর রানা দাশগুপ্ত ও রেজিয়া সুলতানা চমন। অন্যদিকে বিবাদীর পক্ষে ছিলেন রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী গাজী এমএইচ তামিম।

২০১৭ সালের ৩০ জানুয়ারি এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে তদন্ত সংস্থা। ওই সময় মামলায় আসামি পাঁচজন হলেও ইতোমধ্যে মারা গেছেন ৪ জন। শুধুমাত্র খলিলুর রহমান এখনো পলাতক রয়েছেন। এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে ১৯৭১ সালে দুর্গাপুর ও কলমাকান্দা থানা এলাকায় অবৈধ আটক, নির্যাতন, অপহরণ, লুণ্ঠন, অগ্নিসংযোগ, ধর্ষণ, হত্যা ও গণহত্যার অভিযোগ আনা হয়।

এসব অভিযোগের মধ্যে ২২ জনকে হত্যা, একজনকে ধর্ষণ, একজনকে ধর্ষণের চেষ্টা, অপহৃত চারজনের মধ্যে দুজনকে ক্যাম্পে নির্যাতন, ১৪ থেকে ১৫টি বাড়িতে লুটপাট এবং ৭টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগের কথা উল্লেখ করা হয়।

বর্তমানে বিচারাধীন একমাত্র পলাতক আসামি খলিলুর রহমান ১৯৭১ সালে ইসলামী ছাত্র সংঘের সদস্য ছিলেন। যুদ্ধের সময় রাজাকার বাহিনীতে যোগ দেন। পরে চণ্ডীগড় ইউনিয়নে আলবদর বাহিনীর কমান্ডার হন তিনি।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments