Sunday, June 9, 2024
মূলপাতানেত্রকোনার সংবাদকলমাকান্দা উপজেলাপুলিশকে খবর দেয়ায় মাদক সেবীদের হামলায় আহত দুই ভাই মৃত্যু শয্যায়

পুলিশকে খবর দেয়ায় মাদক সেবীদের হামলায় আহত দুই ভাই মৃত্যু শয্যায়

মাদকসেবীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে এলাকাবাসী মাদকসহ কারবারী ও মাদকসেবীদের আস্তানায় হানা দিয়ে আটক করলে ফিল্মি স্টাইলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি পুলিশকে জানালে পুলিশের কাছে স্বাক্ষ্য দিলে দুই ভাইকে কুপিয়ে এবং মোটর সাইকেলের বাম্পার দিয়ে পিটিয়ে আহত করে মারাত্মক যখম করে। আহতরা হলেন, বড়ইউন্দ গ্রামের রাশেন্দ্র সরকারের ছেলে রঞ্জন সরকার (৪৫) ও স্বপন সরকার (৩৫)।

গুরুতর আহত অবস্থায় বুধবার রাতে তাদেরকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে প্রথমে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে অবস্থার অবনতি দেখে চিকিৎসক বৃহস্পতিবার দুপরে ঢাকায় রেফার্ড করে। বর্তমানে তারা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

ঘটনাটি ঘটেছে নেত্রকোনার কলমাকান্দা ও সুনামগঞ্জের মধ্যনগরের সীমান্ত এলাকা কলমাকান্দার বড়খাপন ইউনিয়নের গোবিন্দপুর বড়ইউন্দ বাজারে বুধবার রাতে।

এ ঘটনায় বিট পুলিশের সহায়তায় কলমাকান্দা থানার পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোরে লিটন সরকার (২৪), দীপক সরকার (২৭), আশীস সরকার (২৩) ও আরাধন সরকার (২৫) কে আটক করে দুপুরে নেত্রকোনা আদালতে সোপর্দ করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় বেশ কয়েক গ্রামের প্রায় অর্ধশত যুবক মাদকের রমরমা ব্যবসা করে আসছে। আর মাদক সেবনে রয়েছে কয়েকশ যুবক বৃদ্ধ থেকে কিশোর বয়স পর্যন্ত। যে কারণে এলাকাটিতে একটি রাম রাজত্ব কায়েম করে রেখেছে তারা। দুই জেলার সীমানা হওয়ায় এটি একটি সংযোগ এলাকা হিসেবে ব্যবহার করছে মাদক কারবারীরা। বড়ইউন্দ বাজারে মলয় বিশ^াসের ভাড়া দেয়া ঘরে হানিফ সহ বেশ কজন থাকে। এই ঘরেই চলে মাদকের ব্যবসা সহ সেবন। এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে গত বুধবার সকালে ঘরটিতে হানা দেয়। এসময় মাদকসহ কয়েকজনকে হাতে নাতে আটক করে। এরপর তারা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। পরবর্তীতে পুলিশের কাছে স্বাক্ষ্য দেয়ায় দুপুরে রঞ্জনের উপর হামলা চালায়। এতে তেমন আহত না হওয়ায় এবং এলাকাবাসী চলে আসায় হামলাকারীরা দ্রুত সরে যায়। পরবর্তীতে রাতে বাড়ি ফেরার পথে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাদের উপর হামলা চালায়।

এসময় মোটর সাইকেলের বাম্পার দিয়েও পিটিয়ে হাত পা ভেঙ্গে ফেলা হয় বলে জানান বিট পুলিশের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত এস আই জহিরুল ইসলাম।

রাতেই তাদেরকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ পাঠানো হয়। এদিকে পুলিশ বৃহস্পতিবার ভোররাতে হামলায় জড়িত লিটনসহ চারজনকে আটক করে। এদের সকলের বাড়ি ওই এলাকাতেই।

এ ব্যাপারে বড়খাপন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আহত দুজন এখন ঢাকার পথে। অপরাধীদের ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

সর্বশেষ সংবাদ

Recent Comments